ঘোষণা

অলিম্পিকের আগে হার্ড ইমিউনিটি অর্জন করতে পারবে না জাপান : গবেষক

ওমর শাহ | সোমবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২১ | পড়া হয়েছে 65 বার

অলিম্পিকের আগে হার্ড ইমিউনিটি অর্জন করতে পারবে না জাপান : গবেষক

পরিকল্পনা অনুযায়ী টোকিও অলিম্পিক আয়োজিত হলে ব্যাপক হারে টিকা প্রয়োগ করেও জাপান তার আগে হার্ড ইমিউনিটি অর্জন করতে পারবে না বলে পূর্বাভাস মিলেছে।

লন্ডন ভিত্তিক গবেষক রাসমাস বেক হানসেন বলেছেন, এশিয়ার সবচেয়ে বেশি পরিমাণ টিকা প্রয়োগের কর্মসূচি গ্রহণ করেও অক্টোবরের আগে দেশটির পক্ষে হার্ড ইমিউনিটি অর্জন করা সম্ভব হবে না।

বিশ্বের সবচেয়ে বড় ক্রীড়া আসর অলিম্পিক এই বছরের জুলাই মাসে জাপানের রাজধানী টোকিওতে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। ২৩ জুলাই এর উদ্বোধন হওয়ার কথা রয়েছে।

করোনাভাইরাসের মহামারির মধ্যে ক্রীড়া আসর নিয়ে উদ্বেগ থাকলেও আয়োজকরা যথাসময়ে এটি আয়োজসে দৃঢ় সংকল্প ব্যক্ত করেছেন আয়োজকেরা।

ব্রিটিশ গবেষণা প্রতিষ্ঠান এয়ারফিনিটি’র প্রতিষ্ঠাতা রাসমাস বেক হানসেন বলেছেন, ‘জাপান মনে হচ্ছে খেলা আয়োজনে দেরি করে ফেলবে।

তিনি বলেন, ‘বর্তমানে তারা যুক্তরাষ্ট্র থেকে বহু (টিকা) আমদানির ওপর নির্ভর করছে। আর এই মুহূর্তে, মনে হচ্ছে না যে, তারা খুব সহজে এর বদলে অন্য টিকা, যেমন ফাইজারের টিকা আমদানি করতে পারবে।’

হার্ড ইমিউনিটি অর্জনের জন্য অন্তত ৭৫ শতাংশ মানুষের প্রতিরোধ ক্ষমতা অর্জনের দরকার। গবেষক রাসমাস বেক হানসেন বলছেন, জাপানের এই পরিমাণ মানুষকে টিকা প্রদান করা অক্টোবরের আগে সম্ভব হবে না।

জাপান ইতোমধ্যে ফাইজার, মডার্না এবং অ্যাস্ট্রাজেনেকার কাছ থেকে মোট ৩১ কোটি ৪০ লাখ ডোজ টিকা কেনার আয়োজন করতে সক্ষম হয়েছে। এই পরিমাণ টিকা দেশটির ১২ কোটি ৬০ লাখ মানুষের জন্য যথেষ্ট হবে বলে মনে করা হচ্ছে। তবে জাপান সময়মতো এসব টিকার সরবরাহ পাবে কিনা তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে।

জাপানের টিকা কর্মসূচির প্রধান তারো কোনো গত সপ্তাহে জানিয়েছেন, দশ হাজার মেডিক্যাল কর্মীকে প্রয়োগের মাধ্যমে ফেব্রুয়ারিতে টিকাদান কর্মসূচি শুরু করতে পারবে তারা। তবে জুনের মধ্যে যথেষ্ট পরিমাণ টিকা সরবরাহ পাওয়ার লক্ষ্যমাত্রা পূরণ নিয়ে কিছু বলতে রাজি হননি তিনি।

সূত্র: রয়টার্স

Facebook Comments

বাংলাদেশ সময়: ১০:৫৭ অপরাহ্ণ | সোমবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২১

জাপানের প্রথম অনলাইন বাংলা পত্রিকা |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত