ঘোষণা

আবারো বৈদেশিক মুদ্রার মজুদে রেকর্ড

অনলাইন ডেস্ক | বৃহস্পতিবার, ৩১ ডিসেম্বর ২০২০ | পড়া হয়েছে 33 বার

আবারো বৈদেশিক মুদ্রার মজুদে রেকর্ড

দেশে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ১৫ দিনের মধ্যে আরেকটি নতুন রেকর্ড স্পর্শ করল। সরকারি উদ্যোগ ও উদ্যোক্তাদের উদ্যোমের ওপর ভর করে এগিয়ে যাচ্ছে দেশের অর্থনীতি। অর্থনৈতিক সক্ষমতার অন্যতম মাইলফলক হলো রিজার্ভ।

বাংলাদেশ ব্যাংক ৩০ ডিসেম্বর জানায়, এই প্রথম বৈদেশিক মুদ্রার মজুত ৪৩ বিলিয়ন ডলারের ঘর অতিক্রম করল। সর্বশেষ গত ১৫ ডিসেম্বর এই মজুত ৪২ বিলিয়ন ডলারের রেকর্ডে উন্নীত হয়েছিল।

বর্তমানে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভের পরিমাণ ৪৩ দশমিক ১৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। বৈদেশিক মুদ্রা আয়ের ক্ষেত্রে বড় অবদান প্রবাসীদের পাঠানো অর্থ। রিজার্ভের পরিমাণ বিলিয়ন ডলারের ঘর টপকানোর অর্থ হলো অর্থনীতি শক্তিশালী হচ্ছে।

ডিসেম্বরের ১ থেকে ২৯ তারিখের মধ্যে প্রবাসীদের পাঠানো অর্থের পরিমাণ ছিল এক হাজার ৯১২ মিলিয়ন ডলার। গত বছর একই সময়ে এই আয় ছিল এক হাজার ৫৯৭ মিলিয়ন ডলার।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, গত অর্থবছরের তুলনায় আমদানি ব্যয় ৮ দশমিক ৫৬ শতাংশ কমে ৫৪ দশমিক ৫৬ বিলিয়ন ডলার আমদানি হয়। করোনা মহামারির ধাক্কা না থাকলে যা ৬০ বিলিয়ন ডলারের কাছাকাছি যেত।

আন্তর্জাতিক মানদণ্ড অনুযায়ী, একটি দেশের কাছে অন্তত তিন মাসের আমদানি ব্যয় মেটানোর সমপরিমাণ বিদেশি মুদ্রার মজুত থাকতে হয়। বাংলাদেশ ব্যাংকের এ রিজার্ভ দিয়ে কমপক্ষে ১০ মাসের আমদানি ব্যয় পরিশোধ করা সম্ভব।

দেশের আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম চলে এই বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ দিয়ে। স্বর্ণ, বৈদেশিক মুদ্রা ও ডলার এই তিন ক্যাটেগরিতে বাংলাদেশের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ রাখা হয় দেশ ও বিদেশের বিভিন্ন ব্যাংকে। এই অর্থ বিভিন্ন দেশের বন্ড ও বিলে বিনিয়োগ করা হয়।

প্রতি বছর বিপুল পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা কেনাবেচাও করে বাংলাদেশ। সংকটে পড়লে এ রিজার্ভ অর্থনীতির গতি ধরে রাখতে কাজে দেবে। আমদানি দায় মেটাতে সমস্যায় পড়তে হবে না।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকারের এ অভূতপূর্ব সাফল্যের জন্য রেমিট্যান্স যোদ্ধাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। নতুন একটি বছরের শুরুতে অবশ্যই এটি অত্যন্ত সুখকর ঘটনা। যাদের অক্লান্ত পরিশ্রমে এ অর্জন সেই সকল প্রবাসীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানান অর্থমন্ত্রী।

Facebook Comments

বাংলাদেশ সময়: ১১:৪৭ পূর্বাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ৩১ ডিসেম্বর ২০২০

জাপানের প্রথম অনলাইন বাংলা পত্রিকা |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত