ঘোষণা

আমার দেখা মুক্তিযুদ্ধ

সালাম তাসির | বৃহস্পতিবার, ২৪ ডিসেম্বর ২০২০ | পড়া হয়েছে 631 বার

আমার দেখা মুক্তিযুদ্ধ

আজ মন খারাপের আকাশটা
বেদনায় নীল ছিল সারাদিন
সূর্যটা বিষণ্ন, বাতাসে বিবর্ণ রোদ্দুর
কষ্টের রঙ গোধূলি ছুঁয়ে গেলে
আঁধার অনুসূচিতে তেজোদীপ্ত হয় অগ্নি স্ফুলিঙ্গ
বেদনায় ঝুলে থাকা নক্ষত্রের শাখায় দীর্ঘ হয় একটি দুঃস্বপ্নের রাত।

৭ ই মার্চ, বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষন- এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম
স্বাধীনতার সংগ্রাম।

পঁচিশে মার্চ ১৯৭১
রাতের মধ্যপ্রহর, আঁধারের সিঁড়ি বেয়ে নেমে আসে হীমশীতল নীরবতা।
হঠাৎ বাতাসে বারুদের গন্ধ, জীবদেহে উন্মাতাল প্রাণের অস্তিত্ব ।
গুলিবিদ্ধ নিরস্ত্র মানুষ ঘুম চোখে মৃত্যুকে আলিঙ্গন করে।
ভয়াল সে রাতের নৃশংস সময় থমকে দাঁড়ায় রাজপথে
নিষ্ঠুর ঘাতকেরা মেতে ওঠে বুদ্ধিজীবী হত্যার মহোৎসবে।
সে রাতের নিষ্ঠুরতা আজও আমাকে মৃত্যুর কাছে নিয়ে যায়।
জন্ম নেয় একটি কালো অধ্যায়;
লেখা হয় কলঙ্কিত ইতিহাস।

শোকে বিহ্বল বাঙালি, স্বজন হারানোর বেদনায়
মূহ্যমান মধ্যরাতের ময়দান।

আমি জানি অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদই বিপ্লব
অবিচারের বিরুদ্ধে সংগ্রামই স্বাধীনতা

পরাধীনতার শৃঙ্খল ভেঙে যুদ্ধে যাবার প্রেরণাই ছাব্বিশে মার্চ।

আমি দেখেছি সময়ের হৃদপিণ্ডে রক্তক্ষরণ
বায়ান্ন থেকে একাত্তর কলংকিত ইতিহাস
বাঙালির স্বপ্ন পুরণের দীপ্ত অঙ্গীকার
দেখেছি সংক্ষুব্ধ পাকবাহিনীর বিভৎস রূপ
দুই শো ছেষট্টি রাতের নীরব কান্না।

আমি দেখেছি সে রাতের নিরব কান্নায় ভিজে যাওয়া মাটিতে অঙ্কুরিত সশস্ত্র সংগ্রামের বীজ;
চে গুয়েভারার বিপ্লবী চেতনায় বুক চিতিয়ে দেয়া বাঙালির সংগ্রামের ইতিহাস।
নজরুলের বাংলাদেশ, দ্রোহের অনলে বাঙালি
যুদ্ধ জয়ের নেশায় উজ্জীবিত গেরিলা যোদ্ধা;
জীবনানন্দের রূপসী বাংলায় প্রাণ ও প্রকৃতির গর্জে ওঠা অস্ত্র হাতে অগনিত সূর্য সন্তান।

আমি দেখেছি লোহার শিকলে বাঁধা কষ্টের সময়, শীতের শিশিরে মোড়ানো রাতের শরীর
গৃহহীন মানুষের নির্ঘুম শয্যায় শংকিত জীবন
দেখেছি গুলিবিদ্ধ মুক্তিযোদ্ধার বাঁচার করুণ আকুতি।

আমি দেখেছি শহিদ জননীর রক্তমাখা শাড়ির আঁচলে শোকের মাতম।
সবুজাভ বঙ্গ ভূমিতে আছড়ে পরা রক্তিম সূর্য
দেখেছি সন্তানহারা পিতার চোখে অথৈ সাগর।জাতির বিবেক বুদ্ধিজীবী হত্যার নৃশংশতা
দেখেছি সম্ভ্রম হারা মায়ের চোখে যুদ্ধ জয়ের নিরব হাসি।

আমি দেখেছি কলম যোদ্ধা অ্যালেন গিন্সবার্গের রনাঙ্গণে কাব্যিক যুদ্ধ।
নির্যাতিত মানুষের হৃদয়ে হাহাকার জড়ানো কবিতার পঙক্তিমালা।
বিশ্বসাহিত্যে ঝড় তোলা কবিতায় মুক্তিকামী মানুষের স্বাধীকারের স্বপ্ন
বিবিসি ‘র সংবাদ পাঠক মার্ক টালির প্রাণিত সাহসী কণ্ঠস্বর।

আমি দেখেছি মুক্তিযুদ্ধের সাহসী সৈনিক বাঙালির অকৃত্রিম বন্ধু সাংবাদিক সায়মন ড্রিং
মুক্তির গান গেয়ে প্রেরণা জোগানো বন্ধু-স্বজন
রবি শংকর, জর্জ হ্যারিসন,বব ডিলান।
মুক্তিযুদ্ধে বাঙালির রক্তে স্পন্দন জাগানো গীতিকার বাঙালিবন্ধু গোবিন্দ হালদার,
গানে গানে বিপ্লবী ঝড় ; সৃষ্টিতে সুরধ্বনি তুলেছে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের কণ্ঠ সৈনিকেরা।

আমি দেখেছি গেরিলা যোদ্ধার সাহসী শিক্ষক বীর প্রতীক ওভার ল্যান্ড, সম্মুখ যুদ্ধে বিদেশী বন্ধু তোমাকে
স্যালুট জানাই।

আমি জানি বিপ্লব মানেই ফিদেল কাস্ত্রো,
বন্ধু মানেই মানবতার মূর্ত প্রতীক ইন্দিরা গান্ধী,
মুক্তিযুদ্ধ মানেই জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব,
সংগ্রাম মানেই রণাঙ্গনে রক্তাক্ত মুক্তিযোদ্ধার রাইফেল উচিয়ে উদাত্ত শ্লোগান… জয় বাংলা।

আমি দেখেছি পরাজিত পাকসেনার বিভৎস রূপ ভয়ে ম্রিয়মান লক্ষ সেনার নতমুখী চোখ
অসহায় আত্মসমর্পণের নির্বাক চিত্র।

আমি দেখেছি লাখো শহীদের আত্মার আশীর্বচন রাত শেষে প্রত্যাশিত যুদ্ধ জয়ের প্রথম সকাল
বিজয়ের মহা উল্লাস ১৬ ই ডিসেম্বর।
আমি দেখেছি মুক্তির সনদ; একটি রক্তাক্ত মানচিত্র।
বাঙালির শ্রেষ্ঠ অর্জন , লাল সবুজের পতাকায় মোড়ানো স্বোপার্জিত স্বাধীনতা।

 

Facebook Comments

বাংলাদেশ সময়: ৪:২২ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ২৪ ডিসেম্বর ২০২০

জাপানের প্রথম অনলাইন বাংলা পত্রিকা |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

অশ্রু

১৩ জুলাই ২০২০

শিখে গেছি

২৫ জুলাই ২০২০

পাখির ভাষা

১৪ নভেম্বর ২০২০

বিষাক্ত গাছ

১৮ ডিসেম্বর ২০২০

এগারো নং বাড়ির গেট

২৬ এপ্রিল ২০২১

অন্য কৃষ্ণকলি

১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১

রজনীগন্ধা

০২ ডিসেম্বর ২০২০

মনের কোঠরে

২০ নভেম্বর ২০২০

 হিংসুটে

১৩ জুলাই ২০২০

তোমার  ব্যস্ততা

০৭ এপ্রিল ২০২১

শেষ দেখা

২৪ নভেম্বর ২০২০

ঝিরিঝিরি পাতার গাছটি

০৪ সেপ্টেম্বর ২০২০