ঘোষণা

কবিগুরুর জন্মদিন উপলক্ষে বিবেকবার্তার পাঠক ও শুভাকাঙ্খীদের প্রতি সম্পাদকের শুভেচ্ছা

| শুক্রবার, ০৮ মে ২০২০ | পড়া হয়েছে 92 বার

কবিগুরুর জন্মদিন উপলক্ষে বিবেকবার্তার পাঠক ও শুভাকাঙ্খীদের প্রতি সম্পাদকের শুভেচ্ছা

বিবেকবার্তা প্রতিবেদক : আজ পঁচিশে বৈশাখ। কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৫৯তম জন্মবার্ষিকী। কবিগুরুর জন্মদিন উপলক্ষে বিকেকবার্তার সকল পাঠক, শুভাকাঙ্খী ও প্রবাসীদের প্রতি শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সম্পাদক পি.আর. প্ল্যাসিড।

১২৬৮ বঙ্গাব্দের এই দিনে কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কলকাতায় মা সারদাসুন্দরী দেবী এবং বাবা বিখ্যাত জমিদার ও ব্রাহ্ম ধর্মগুরু দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুরের ঘরে জন্মগ্রহণ করেন। কলকাতার জোড়াসাঁকোর ঠাকুর পরিবারে জন্মগ্রহণ করলেও কবির পূর্বপুরুষরা এ বাংলাদেশের খুলনার অধিবাসী।

শুভেচ্ছা বার্তায় সম্পাদক পি.আর. প্ল্যাসিড বলেন, ‘বাঙালির মনন ও সৃজনে রবীন্দ্রনাথ এক অবিচ্ছেদ্য অংশ। বিশ্বের বুকে বাঙালি ও বাংলা সাহিত্যকে মহিমার সঙ্গে তুলে ধরতেও রয়েছে কবিগুরুর ভূমিকা। আর তাঁর সাহিত্যকর্ম, সংগীত, জীবনদর্শন, মানবতা, ভাবনা সবকিছুই সত্যিকারের বাঙালি হতে অনুপ্রাণিত করে।’

এ দেশের জাতীয় সংগীত রচনা করে বাঙালির চেতনা ও লাল-সবুজের পতাকায় নিজেকে উন্নীত করেছেন সম্মান ও ভালোবাসার আসনে। তিনিই বিশ্বের একমাত্র কবি যিনি বাংলাদেশ, ভারতসহ দুই দেশের জাতীয় সংগীতের রচয়িতা। ‘আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালোবাসি’ জাতীয় সংগীতের মধ্য দিয়ে এ দেশের প্রকৃতি, মানুষ ও মানবিকতার কথা বাঙময় করে গেছেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। কবির জাতীয় সংগীত শুধু জাতিসত্তার চেতনায় অনুরণন তোলে না মুক্তিযুদ্ধের সময় তাঁর গান ও কবিতা এ দেশের মুক্তিকামীদের শিহরিত, আন্দোলিত ও আলোড়িত করেছিল। রবীন্দ্রনাথ মিশে আছেন বাঙালির অস্তিত্বে, সৃজনে ও মননে। যার কারণে বাঙালির মানসপটে তাঁর জন্য রয়েছে অকৃত্রিম ভালোবাসা ও গভীর শ্রদ্ধা। কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ছিলেন একাধারে কবি, ছোটগল্পকার, ঔপন্যাসিক, নাট্যকার, গীতিকার, সুরকার ও চিত্রকর। রবীন্দ্রনাথের ৫২টি কাব্যগ্রন্থ, ৩৮টি নাটক, ১৩টি উপন্যাস ও ৩৬টি প্রবন্ধ ও অন্যান্য গদ্যসংকলন তাঁর জীবদ্দশায় ও মৃত্যুর পর প্রকাশিত হয়েছে। আর নিজের এসব সৃষ্টিকর্মে তিনি মানবতা ও অসাম্প্রদায়িকতার বিষয় তুলে ধরেছেন। ‘গীতাঞ্জলি’ কাব্যগ্রন্থের জন্য ১৯১৩ সালে নোবেল পুরস্কার লাভ করেন রবীন্দ্রনাথ।

Facebook Comments

বাংলাদেশ সময়: ৯:০৮ পূর্বাহ্ণ | শুক্রবার, ০৮ মে ২০২০

জাপানের প্রথম অনলাইন বাংলা পত্রিকা |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত