ঘোষণা

করোনার মধ্যেও নিজেদের স্বাস্থ্যবান মনে করেন জাপানের ৫০% মানুষ

অনলাইন ডেস্ক | শুক্রবার, ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ | পড়া হয়েছে 117 বার

করোনার মধ্যেও নিজেদের স্বাস্থ্যবান মনে করেন জাপানের ৫০% মানুষ

করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের পরে উন্নত জীবনধারা গ্রহণের কারণে জাপানের প্রায় অর্ধেক মানুষ করোনা ছড়িয়ে পড়ার আগের চেয়ে এখন বেশি সুস্থ বলে মনে করছেন। এক বেসরকারী সংস্থা মেইজি ইয়াসুদা লাইফ ইন্স্যুরেন্স কো-এর এক অনলাইন জরিপে এমন তথ্য জানানো হয়েছে।

জরিপে বলা হয়েছে, করোনা প্রাদুর্ভাবের পরে ঘরে থাকার সময় তাদের সুস্থতার পরিবর্তনের বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে তাদের ৪৮.১ শতাংশ বলেছেন তারা এখন “স্বাস্থ্যকর” বা “কিছুটা স্বাস্থ্যবান” বোধ করছেন।

জরিপ অনুসারে, অনেক মানুষ তাদের খাদ্যাভাস পরিবর্তন ও বেশি বেশি ব্যায়াম করায় তাদের জীবনযাত্রার উন্নতি করেছে। খাদ্যাভাস ও ব্যায়াম এক সাথে এই দুটির অনুশীলন নিয়মিত করার কারণেই জাপানিরা করোনার মধ্যেই নিজেদের স্বাস্থ্যবান অনুভব করছেন।
জরিপে আরো বলা হয়েছে, মাত্র ২.৮ শতাংশ জাপানি বলেছেন যে করোনার কারণে তারা “অস্বাস্থ্যকর” হয়ে গেছেন। এছাড়া শারীরিক কোনো ধরনের পরিবর্তন অনুভব করেননি তাদের সংখ্যা ৪৯.১ শতাংশ।

জরিপটি পুরো জাপানের ২০ থেকে ৭৯ বছর বয়সী বিবাহিত পুরুষ ও নারীদের ওপর করা হয়। গত ৬ থেকে ১৩ আগস্ট এ সময়ের মধ্যে জরিপটি পরিচালনা করা হয়। এ সময়ের মধ্যেই দেশের নাগরিকদের স্বাস্থ্য বিষয়ে প্রশ্নগুলো করা হয়।

সব উত্তরদাতার মধ্যে ৪৫.১ শতাংশ বলেছেন, বাড়িতে থাকতে ও অযৌক্তিক কারণে বাড়ির বাইরে ঘুরাঘুরি থেকে বিরত থাকার বিষয়ে সরকার যে নির্দেশনা দিয়েছেন তা কার্যকরি ভূমিকা পালন করেছে।

সরকার ঘরে থাকার নির্দেশনাসহ প্রাথমিকভাবে ওজন ও অন্যান্য কারণগুলি ধরিয়ে দেওয়ার কারণে তারা আরও বেশি স্বাস্থ্য সচেতন হয়েছেন বলেও জানান তারা। সবচেয়ে বেশি ফিট থাকার জন্য কোন পন্থা অবলম্বন করা হয়েছে জরিপে এমন প্রশ্নের উত্তরে ৫০.৯ শতাংশ বলেছিলেন যে তারা এখন তাদের ডায়েট ও পুষ্টির প্রতি আরও বেশি মনোযোগ দিয়েছেন আর ব্যায়ামের কথা বলেছেন ৩৫.৩ শতাংশ জাপানি নাগরিক।

শরীরকে সুস্থ রাখতে ২২.৮ শতাংশ মানুষ কোনো ধরনের চেষ্টাই করেননি। আর ৬.০ শতাংশ লোক জানিয়েছেন তারা অ্যালকোহল গ্রহণ (মদ্যপান) বন্ধ করে দিয়েছেন।
তথ্যসূত্র: মাইনিসি নিউজ

Facebook Comments

বাংলাদেশ সময়: ১২:৩১ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২০

জাপানের প্রথম অনলাইন বাংলা পত্রিকা |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত