ঘোষণা

যুক্তরাষ্ট্রে মডার্নার ভ্যাকসিন অনুমোদনে বিশেষজ্ঞদের সুপারিশ

অনলাইন ডেস্ক | শুক্রবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০২০ | পড়া হয়েছে 270 বার

যুক্তরাষ্ট্রে মডার্নার ভ্যাকসিন অনুমোদনে বিশেষজ্ঞদের সুপারিশ

যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ভ্যাকসিন হিসেবে মডার্নার ভ্যাকসিনকে জরুরি অনুমোদন দিতে সুপারিশ করেছে যুক্তরাষ্ট্রের একটি বিশেষজ্ঞ প্যানেল।

গতকাল বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসনের (এফডিএ) একটি উপদেষ্টা প্যানেল ২০-০ ভোটে ১৮ বছর বা তার বেশি বয়সীদের মধ্যে ব্যবহারের জন্য ভ্যাকসিনটিকে অনুমোদন দেওয়ার পরামর্শ দেয়। প্যানেলের এক সদস্য এদিন ভোট দেননি বলে জানা গেছে।

বিবিসি জানায়, এর আগে ফাইজার-বায়োএনটেকের তৈরি ভ্যাকসিনের জরুরি ব্যবহারের অনুমোদনের পক্ষে ওই একই প্যানেল ভোট দেওয়ার পরই এফডিএ ভ্যাকসিনটি অনুমোদন দেয়।

বিশেষজ্ঞদের এ সুপারিশের ফলে এফডিএ শিগগিরই ভ্যাকসিনটিকে জরুরি ব্যবহারের জন্য ছাড়পত্র দেবে বলে অনুমান করছেন পর্যবেক্ষকরা। সেক্ষেত্রে আগামী সপ্তাহ থেকেই যুক্তরাষ্ট্রে এ টিকার প্রয়োগ শুরু হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এফডিএর প্রধান জানান, এফডিএ মডার্না ভ্যাকসিন অনুমোদনের জন্য দ্রুত ব্যবস্থা নেবে। যাতে ওষুধ প্রতিষ্ঠানটি কয়েক মিলিয়ন ডোজ পরিবহন শুরু করতে পারে।

নিয়ন্ত্রকরা এই সপ্তাহের শুরুতে জানান, মডার্নার ভ্যাকসিনটি নিরাপদ ও ৯৯ শতাংশ কার্যকর। যুক্তরাষ্ট্র ইতোমধ্যেই মডার্নার কাছ থেকে ২০০ মিলিয়ন ডোজ কিনতে রাজি হয়েছে এবং ভ্যাকসিনটি এফডিএর অনুমোদন পেলেই মডার্না আরও ছয় মিলিয়ন ডোজ সরবরাহের জন্য প্রস্তুত রয়েছে।

মডার্না ভ্যাকসিন সংরক্ষণের জন্য মাইনাস ২০ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড তাপমাত্রা প্রয়োজন, যা সাধারণ ফ্রিজারের সমান। অন্যদিকে, ফাইজারের ভ্যাকসিনের জন্য তাপমাত্রা মাইনাস ৭৫ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড প্রয়োজন। ফলে মডার্নার ভ্যাকসিনটি বিতরণ করা ফাইজারের ভ্যাকসিনের তুলনায় সহজ।

ফাইজার ভ্যাকসিনের মতো মডার্নার ভ্যাকসিনের ক্ষেত্রেও প্রত্যেকের জন্য দুইটি ডোজের প্রয়োজন। মডার্নার দ্বিতীয় ডোজটি প্রথমটি নেওয়ার ২৮ দিন পরে নিতে হয়।

করোনাভাইরাসে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ও মৃত্যু যুক্তরাষ্ট্রে। জনস হপকিনস বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, এ পর্যন্ত দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন এক কোটি ৭১ লাখ ৯৮ হাজার ৬৩৩ জন এবং মারা গেছেন তিন লাখ ১০ হাজার ৪৫৬ জন।

Facebook Comments

বাংলাদেশ সময়: ২:৫৩ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০২০

জাপানের প্রথম অনলাইন বাংলা পত্রিকা |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

ad