ঘোষণা

৬ লাখ ইয়েন পাবেন জাপানের নববিবাহিতরা

ওমর শাহ | রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ | পড়া হয়েছে 135 বার

৬ লাখ ইয়েন পাবেন জাপানের নববিবাহিতরা

জাপানের নব দম্পতিদের জন্য সুখবর দিয়েছে দেশটির সরকার। নতুন জীবন শুরু করার জন্য তাদের বাসা ভাড়া ও অন্যান্য ব্যয়বাবদ ৬,০০,০০০ ইয়েন ( ৫,৭০০ মার্কিন ডলার) দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটির সরকার।

সরকারি এই অর্থ পাওয়ার জন্য পৌরসভার বাসিন্দা হতে হবে। আগামী বছরের এপ্রিল থেকেই এই এই অর্থ দেয়া হবে বলে সরকারি সূত্রের বরাত দিয়ে ২০ সেপ্টেম্বর (সোমবার) জানিয়েছে জাপানের বার্তা সংস্থা কায়দো নিউজ।

জাপানের মন্ত্রিপরিষদ অফিসের বরাত দিয়ে কায়যো নিউজ জানায়, দেরিতে বিয়ে করা বা অবিবাহিত থাকার প্রবণতার কারণে জাপানে জন্ম হার কমে যাচ্ছে। তাই সরকার বিয়ে করার জন্য সহায়তা কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

বিয়ের উপযুক্ত নারী-পুরুষদের সহায়তা দিয়ে বিয়ের সংখ্যা বাড়ানোর চেষ্টা করছে সরকার। তার অংশ হিসেবেই আগামী বছর থেকে ৬ লাখ জাপানি ইয়েন দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাপান সরকার।

সরকারি এ সহায়তার পেতে হলে স্বামী ও স্ত্রী উভয়েরই বিবাহের নিবন্ধিত তারিখ হিসাবে ৪০ বছরের কম বয়সী হতে হবে এবং তাদের যৌথ আয় ৫.৪ মিলিয়ন ইয়েনের কম হতে হবে।

বর্তমানের শর্তে, ৩৫ বছর বয়সী স্বামী-স্ত্রী ও তাদের যৌথ আয় ৪.৮ মিলিয়ন ইয়েনের কম হলে ৩ লাখ ইয়েন পর্যন্ত সরকারি সহায়তা পান জাপানের নাগরিকরা।

জুলাই পর্যন্ত জাপানের ২৮১ টি পৌরসভা বা শহর ও গ্রামের ১৫ শতাংশ জাপানি নাগরিক এই কর্মসূচির আওতায় সহায়তা গ্রহণ করেছে। এতো দিন এ ব্যয়ের অর্ধেক ব্যয় বহন করেছে স্থানীয় সরকার।

তবে ২০২১ অর্থবছরে জাপানের কেন্দ্রীয় সরকার এই ব্যয়ের সংখ্যা বাড়িয়ে দুই-তৃতীয়াংশ বহন করবে বলে সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েচে। জাপানের প্রতি বছরেই শিশুর সংখ্যা কমে যাচ্ছে তাই এমন উদ্যোগ গ্রহণল করেছে দেশটির সরকার।

এই কর্মসূচি জাপানের বাবা-মাকে জন্ম হার বাড়ানোর বিষয়ে সহায়তা করবে বলে মনে করা হচ্ছে। দেশটির বিবাহিত দম্পতিরা দুটির বেশি সন্তান নিতে চান না। যা জাপানের শিশু জন্মহারের উপর প্রভাব পড়ছে।

গত বছরের এক সমীক্ষায় দেখা যায়, জাপানের একজন নারী তার জীবদ্দশায় গড়ে দুইটি শিশুও জন্ম দেন না। ওই সমীক্ষায় দেখা যায় জাপানের একজন নারী গড়ে ১.৩৬ জন শিশু জন্ম দেন। যা সর্বনিম্নের দিক দিয়ে রেকর্ড। গত বছর জাপানের মাত্র ৮ লাখ ৬৫ হাজার শিশু জন্মগ্রহণ করেছে।

জাপানের সামাজিক সুরক্ষা সংস্থা ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব পপুলেশন এন্ড সিকিউরিটি রিচার্স এর ২০১৫ সালের এক সমীক্ষায় দেখা যায়, দেশটির ২৫ থেকে ৩৪ বছর বয়সী ২৯.১ শতাংশ পুরুষ ও ১৭.৮ শতাংশ নারী অবিবাহিত একক ভাবে জীবন যাপন করছেন। তাদের অবিবাহিত থাকার কারণ বিয়ে করার মতো তাদের অর্থনৈতিক অবস্থা ছিল না।

তথ্যসূত্র: কায়ডো নিউজ
সম্পাদনা : পি আর প্ল্যাসিড

Facebook Comments

বাংলাদেশ সময়: ৭:৫৩ অপরাহ্ণ | রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০

জাপানের প্রথম অনলাইন বাংলা পত্রিকা |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত