ঘোষণা

সংক্রমণ বৃদ্ধির মাঝেও চুপিসারে গ্রীষ্মের ছুটি শুরু হলো জাপানে

ওমর শাহ | শনিবার, ০৮ আগস্ট ২০২০ | পড়া হয়েছে 78 বার

সংক্রমণ বৃদ্ধির মাঝেও চুপিসারে গ্রীষ্মের ছুটি শুরু হলো জাপানে

প্রতি বছর বন হলি ডে বা গ্রীষ্মকালীন ছুটিতে এক প্রদেশ থেকে প্রিয়জনদের সাথে দেখা করতে অন্য প্রদেশে ছুটে যান জাপানিরা। তবে এবার গ্রীষ্মকালীন ছুটিতে নেই চিরচেনা সেই ছুটাছুটি। রেল স্টেশন ও বিমান বন্দরে নেই কোনো ভিড়।

অনেকটা চুপিসারে ৮ আগস্ট (শনিবার) থেকে জাপানে শুরু হয়েছে গ্রীষ্মকালীন ছুটির মৌসুম। স্থানীয় সরকারগুলো নিজ নিজ বাসিন্দাদের ভ্রমণ না করতে অনুরোধ করায় রেল স্টেশন ও বিমানবন্দরগুলোতে কোনও যানজটও নেই।

প্রাদেশিক সরকারগুলো করোনা ভাইরাস যাতে ছড়িয়ে পড়তে না পারে সেই জন্য দেশের মানুষকে ছুটির মধ্যেও ভ্রমণ না করার এমন অনুরোধ জানিয়েছে বলে জাপানের বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে ওঠে এসেছে।

কিছু রিজার্ভ ট্রেনের মাত্র ৫ শতাংশ পূরণ হয়েছে যেখানে ৭০ শতাংশ রিজার্ভ রাখা হয়েছে। সাধারণত বন ছুটির সময়ের প্রথম দিনেই ১০০ শতাংশেরও বেশি বুকিং হয়ে যায় আসনগুলো।

বুলেট ট্রেন ও বিমানের বুকিংও যথাক্রমে কমেছে ৬০ ভাগ ও ৯৭ ভাগ। গত ২২ জুলাই জাপানের কেন্দ্রীয় সরকার দেশের মানুষকে ভ্রমণ ভর্তুকি দেওয়ার ঘোষণা দেয়। ওই ঘোষণার পর এ বছর আরো বেশি ভ্রমণ বৃদ্ধির বদলে মানুষের যাতায়াতের হার কমেছে।

তবে দেশজুড়ে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ বৃদ্ধি সত্ত্বেও দেশের মানুষকে ভ্রমণ না করতে কোনো অনুরোধ বা ভ্রমণে কোনো নিষেধাজ্ঞাও জারি করেনি জাপানের কেন্দ্রীয় সরকার। তবে কেন্দ্রীয় সরকার করলেও অনেক স্থানীয় সরকার করোনা ভাইরাসের প্রকোপের ফলে এ বছর গ্রীস্মের ছুটিতে ভ্রমণ না করার অনুরোধ করে।

সম্প্রতি করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধির ফলে টোকিও গভর্নর ইউরিকো কোইকসহ প্রাদেশিক গভর্নররা বাসিন্দাদেরকে প্রদেশের সীমান্তের ওপারে ভ্রমণ থেকে বিরত থাকার জন্য অনুরোধ করেছেন, কারণ তারা ভয় পাচ্ছে যে, মানুষের মেলামেশায় ভাইরাস আরও ছড়িয়ে পড়তে পারে।

মে মাসের শেষের দিকে দেশজুড়ে জরুরি অবস্থা সরিয়ে নেওয়ার পরে জাপানে সংক্রমণের হার বাড়তে থাকে। রাজধানী ও অন্যান্য শহরাঞ্চলে সংক্রমণ বৃদ্ধি পায়।

তথ্যসূত্র: জাপান টাইমস

সম্পাদনায় : পি. আর. প্ল্যাসিড

Facebook Comments

বাংলাদেশ সময়: ৮:২০ অপরাহ্ণ | শনিবার, ০৮ আগস্ট ২০২০

জাপানের প্রথম অনলাইন বাংলা পত্রিকা |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত