ঘোষণা

দর্পণ ছিল বিবেক ম্যাগাজিনের উদ্যোক্তা, তাঁর চলে যাওয়ায় আমরা ব্যথিত

| মঙ্গলবার, ০২ জুন ২০২০ | পড়া হয়েছে 29 বার

দর্পণ ছিল বিবেক ম্যাগাজিনের উদ্যোক্তা, তাঁর চলে যাওয়ায় আমরা ব্যথিত

দেশে থাকার সময় বিশেষ কারণে আমি নিজে নিজেই প্রতিজ্ঞা করেছিলাম, কখনও কোনো পত্রিকা বা ম্যাগাজিন সম্পাদনা করবো না বা সম্পাদক হবো না। তবে লেখালেখি করার ইচ্ছে ছিল প্রচন্ড। বিষয়টি উল্টো হয়ে গেল একসময়কার জাপান প্রবাসী দর্পণের অনুরোধে। সে যে কত বেশি অনুরোধ করেছিল তা বলে বোঝানো যাবে না। দর্পণ আমাকে কৌশলে বাধ্য করিয়েছিলেন জাপানে একটি ম্যাগাজিন সম্পাদনা করতে।

ম্যাগাজিন প্রকাশে সে আমার সকল বিষয়ে স্বাধীনতা দিবেন প্রতিজ্ঞা করেছিলেন। কারণ দর্পণ আর আমি ভিন্ন রাজনীতির আদর্শের ছিলাম। তবে তার শর্ত ছিল একটি। শর্তটি ছিল, তার নাম কোথাও ব্যবহার করা যাবে না। আমি তার এই শর্ত রক্ষা করতে পারিনি। একারণেই পরবর্তীতে তার সাথে ম্যাগাজিনের কাজ করা হয়নি। দর্পণ যে আমাকে ম্যাগাজিন প্রকাশের কাজে আগ্রহী করেছিলেন এজন্যই তার প্রতি আমার কৃতজ্ঞতা। বিবেক নামটি আমার দেয়া।

ম্যাগাজিনের নামটি প্রথম অনেকেই মেনে নিতে পারেননি। পরবর্তীতে এত সুন্দর নাম রাখায় অনেকের শুভেচ্ছা-অভিনন্দন পেয়েছি। সে পিছন থেকে আমাকে শক্তি সাহস যুগিয়েছে। তা স্বীকার করতেই হয়। একসময় দর্পণ জাপান ছেড়ে চলে গেলে আমি খুব একা হয়ে পড়ি। যে কারণে বিবেকের মত ও পথ বদলে যাওয়ায় পরবর্তীতে বিবেক হয়ে যায় বিবেকবার্তা।

বিবেকবার্তা প্রকাশ এবং মিডিয়ার কাজ সুন্দরভাবে করতে জাপানে আমি বিবেক নামে একটি কোম্পানি প্রতিষ্ঠা করেছি। সিবকিছু সুন্দরভাবে চললেও দর্পণের সাথে যোগাযোগ আর হয়নি কখনও। দর্পণকে খুঁজতে আমি দেশে তার গ্রামের বাড়ি মুন্সীগঞ্জ পর্যন্ত গিয়েছি, পাইনি। শুনেছি আফ্রিকার কোনো এক দেশে থাকেন। নানা বিধ কারণে যোগাযোগ আর হয়ে উঠেনি।

হঠাৎই ৩১ মে ২০২০, রবিবার জানতে পারলাম দর্পণ চলে গেছেন চিরতরে। সংবাদটি পাবার সাথে সাথে নিজের কাছে খুব অপরাধ বোধ কাজ করলো। দর্পণ চলে গেল ঠিক, কিন্তু তার চলে যাবার পর যে বিষয়টি না বললেই নয় মনে করছি, তা হলো, দর্পণ আমাকে অন্যায়ের সাথে কম্প্রোমাইজ না করতে সবসময় অনুরোধ করতেন। সামনের দিকে একা হলেও পথ চলতে সাহস যুগিয়েছেন। আমি তা রক্ষা করেছি, এখনও করছি। আমি একা থাকি তবু অন্যদের মত স্রোতে গাঁ ভাসাইনি, আর ভাসাবোও না।

বিবেক থেকে বিবেকবার্তা নাম করন বা ম্যাগ্যাজিন থেকে পত্রিকা তারপর অনলাইন যাই হোক না কেন আমি ব্যক্তি জীবনে দর্পণের নাম কখনও ভুলিনি, ভুলবোও না। দর্পণের আত্মা যেখানেই থাকুক আমি তার আত্মার শান্তি ও স্বর্গবাস কামনা করছি।

পি.আর. প্ল্যাসিড
সম্পাদক
বিবেকবার্তা ডট জেপি
২ জুন ২০২০, মঙ্গলবার

Facebook Comments

বাংলাদেশ সময়: ৯:৩৫ পূর্বাহ্ণ | মঙ্গলবার, ০২ জুন ২০২০

জাপানের প্রথম অনলাইন বাংলা পত্রিকা |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত