ঘোষণা

জাপানের নাইটক্লাবে চুমু খেতে মানা

ওমর শাহ | মঙ্গলবার, ২১ জুলাই ২০২০ | পড়া হয়েছে 86 বার

জাপানের নাইটক্লাবে চুমু খেতে মানা

করোনা মহামারির মধ্যেও জাপানের হোস্ট ক্লাব ও নাইট ক্লাব চালু থাকায় দিনদিনই সংক্রমণের হার বাড়ছে। বিশেষ করে রাজধানী টোকিওতে সঠিক স্বাস্থ্য বিধি না মানার কারণে এ ক্লাবগুলো করোনা সংক্রমণের হট স্পটে পরিণত হয়েছে।

রাত্রিকালে ফূর্তির জন্য পরিচালিত ক্লাবগুলোতে করোনা ভাইরাস থেকে সুরক্ষায় বাস্তবিক গাইডলাইন অনুসরণ করতে চুমু খাওয়া ও খাবার শেয়ার বন্ধ রাখার পরামর্শ দিয়েছেন দেশটির জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা।

বার স্টাফদের স্বাস্থ্য বিধি মেনে কাস্টমারের সাথে যোগাযোগ করার তাগিদ দিয়েছেন টোকিওর ইউরোলজিস্ট ও জনস্বাস্থ্য অ্যাডভোকেট শিন্যা ইওয়ামুরো। শিনজুকু ওয়ার্ড ও অন্যান্য নাইটস্পটগুলিতে সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থার নিয়ম শিখিয়েছেন ইওয়ামুরো।
তিনি বলেছেন, হোস্ট ক্লাব ও নাইট ক্লাবের কর্মীদের কীভাবে গ্রাহকদের সাথে যোগাযোগ করতে হবে সে সম্পর্কে ব্যবহারিক নিয়ম দরকার। এই জন্য কতগুলো নিয়ম মানতে হবে। এই নিয়ম মানলে সুরক্ষা পাওয়া যাবে বলেও জানান তিনি।

নাইটক্লাবে ও হোস্ট ক্লাবে সংক্রমণ এড়াতে চুমু না খাওয়া, ডান দিকে কাত হয়ে কথোপকথন না করা ও সামনা সামনি কথোপকখন না করার পরামর্শ দিয়েছেন এই ইউরোলজিস্ট। কথার মাধ্যমে ড্রপলেটেরে মাধ্যমে ছড়াতে পারে ভাইরাস। তাই ভাইরাসের হট স্পট হোস্ট ক্লাব ও নাইট ক্লাবে এই সামধানতাগুলো অবলম্বন করার কথা বলেছেন তিনি।

সবাইকে হোস্ট ক্লাবে ও নাইট ক্লাবে “চুম্বন শিষ্টাচার” মেনে চলে যতটা সম্ভব নিজ সঙ্গীর সাথে চুম্বন করতে ও গভীর চুম্বন এড়িয়ে চলারও পরামর্শ দিয়েছেন জাপানের এই জনস্বাস্ত্য বিশেষজ্ঞ।

টোকিওর নাইট লাইফ জেলাগুলোতে পরীক্ষা-নিরীক্ষায় করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ার চিত্র দেখা যাচ্ছে। যেখানে ২০-৩০ বছরের বয়সীদের মধ্যে করোনা সংক্রমণ বেশি। কারণ এই বয়সীরাই বেশি নাইটক্লাবে যাতায়াত করে থাকে।
টোকিও গভর্নর ইউরিকো কাইকিকে গত ১৫ জুলাই নগরীর সতর্কতায় সর্বোচ্চ “রেড” লেভেল জারি করেন।

তথ্যসূত্র: দ্য জাপান টাইমস

Facebook Comments

বাংলাদেশ সময়: ৬:৫৮ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, ২১ জুলাই ২০২০

জাপানের প্রথম অনলাইন বাংলা পত্রিকা |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত