ঘোষণা

জাপানের পথে পথে (পর্ব-৭) মেট্রোজীবন ও চিত্রশালা

সাইম রানা | মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১ | পড়া হয়েছে 52 বার

১২ ই জুন ২০০৫ । সকালে সেনসেই আর গাড়ি বের করলেন না। শুরু হল ট্রেন ভ্রমণ। বাসা থেকে ৫/৭ মিনিটের পথ হেঁটে কামিমাছি স্টেশনে পৌঁছুলাম। সেখান থেকে শিবুয়া স্টেশন পর্যন্ত যেতে হবে সেতাগায়া লাইনে উঠে । স্টেশন থেকে তিনি আমার জন্য একটি জেআর (জাপান রেলওয়ে) লাইনের জন্য সুইকা ও অন্যান্য লাইনের জন্য প্রিপেইড কার্ড সংগ্রহ করলেন। এছাড়া কীভাবে ...বিস্তারিত

১২ ই জুন ২০০৫ । সকালে সেনসেই আর গাড়ি বের করলেন না। শুরু হল ট্রেন ভ্রমণ। বাসা থেকে ৫/৭ মিনিটের পথ হেঁটে কামিমাছি স্টেশনে পৌঁছুলাম। সেখান থেকে শিবুয়া স্টেশন পর্যন্ত যেতে হবে সেতাগায়া লাইনে উঠে । স্টেশন থেকে ...বিস্তারিত

১২ ই জুন ২০০৫ । সকালে সেনসেই আর গাড়ি বের ...বিস্তারিত

জাপানের পথে পথে (পর্ব-৬) শিক্ষানীতি ও বাদ্য নির্বাচন

সাইম রানা | শুক্রবার, ০৭ মে ২০২১ | পড়া হয়েছে 55 বার

জাপানিজ ভাষায় শিক্ষককে সেনসেই বলে, আর শিক্ষার্থীকে বলে গাকুসেই। (যদিও গাকুসেই বলতে শিক্ষা সংক্রান্ত অধ্যাদেশকেও বোঝানো হয়) তবে ছাত্ররা শিক্ষককে সেনসেই বলে সম্বোধন করলেও শিক্ষকরা গাকুসেই বলে সম্বোধন না করে নামের সাথে ‘সান’ যুক্ত করে নেয় । যেমন আমি কিয়োকোকে সেনসেই বলা শুরু করলাম আগের দিন আইওইন টেম্পল থেকে ফেরার সময় থেকে, আর তিনি আমাকে ডাকলেন রানা সান, যদিও ‘র’ ধ্বনিটি অনেকটা ‘ল’ এর মতো হয়ে যায়, আবার ‘ল’ ও ...বিস্তারিত

জাপানিজ ভাষায় শিক্ষককে সেনসেই বলে, আর শিক্ষার্থীকে বলে গাকুসেই। (যদিও গাকুসেই বলতে শিক্ষা সংক্রান্ত অধ্যাদেশকেও বোঝানো হয়) তবে ছাত্ররা শিক্ষককে সেনসেই বলে সম্বোধন করলেও শিক্ষকরা গাকুসেই বলে সম্বোধন না করে নামের সাথে ‘সান’ যুক্ত করে নেয় । যেমন আমি কিয়োকোকে সেনসেই বলা শুরু করলাম আগের দিন আইওইন টেম্পল থেকে ফেরার ...বিস্তারিত

জাপানিজ ভাষায় শিক্ষককে সেনসেই বলে, আর শিক্ষার্থীকে বলে গাকুসেই। (যদিও গাকুসেই বলতে শিক্ষা সংক্রান্ত অধ্যাদেশকেও বোঝানো হয়) তবে ছাত্ররা শিক্ষককে ...বিস্তারিত

জাপানের পথে পথে (পর্ব-৫) বৃত্তির বিড়ম্বনা ও মিউজিক স্কুল

সাইম রানা | রবিবার, ০২ মে ২০২১ | পড়া হয়েছে 124 বার

এখানে কেন ভর্তি হলাম? অনেকের কাছে এমন প্রশ্ন জাগতে পারে। ব্যাপারটা খোলাসা করা দরকার। আইওইন একটি বৌদ্ধমন্দির হলেও এখানে একটি গবেষণা ইন্সটিটিউট রয়েছে যার নাম ক্যারিওবিঙ্গা বুদ্ধিস্ট কেনকিউকাই। ক্যারিওবিঙ্গা অর্থ হল চীন দেশের এক প্রকার সুরেলা গানের পাখি আর কেনকিউকাই মানে গবেষণাগার। এই গবেষণা প্রতিষ্ঠানটি মূলত সিঙ্গন ধারার সংগীত ও দর্শন চর্চা করা থাকে। জাপানের বুদ্ধিজম আরও কিছু ধারা বা সেক্টর রয়েছে, তন্মধ্যে তেনদাই ও জেন অন্যতম। এ নিয়ে ...বিস্তারিত

এখানে কেন ভর্তি হলাম? অনেকের কাছে এমন প্রশ্ন জাগতে পারে। ব্যাপারটা খোলাসা করা দরকার। আইওইন একটি বৌদ্ধমন্দির হলেও এখানে একটি গবেষণা ইন্সটিটিউট রয়েছে যার নাম ক্যারিওবিঙ্গা বুদ্ধিস্ট কেনকিউকাই। ক্যারিওবিঙ্গা অর্থ হল চীন দেশের এক প্রকার সুরেলা গানের পাখি আর কেনকিউকাই মানে গবেষণাগার। এই গবেষণা প্রতিষ্ঠানটি মূলত সিঙ্গন ধারার সংগীত ও ...বিস্তারিত

এখানে কেন ভর্তি হলাম? অনেকের কাছে এমন প্রশ্ন জাগতে পারে। ব্যাপারটা খোলাসা করা দরকার। আইওইন একটি বৌদ্ধমন্দির হলেও এখানে একটি ...বিস্তারিত

জাপানের পথে পথে – (পর্ব-৪) আইওইন মন্দিরে সৌম্য সংগীত

সাইম রানা | বৃহস্পতিবার, ২৯ এপ্রিল ২০২১ | পড়া হয়েছে 84 বার

২০০৫ সালের ১১ই জুন । টোকিও শহরের প্রথম দিনের সকাল। প্রফেসর কিয়োকোর সেতাগায়া কু-এর বাসায় দক্ষিণের জানালা দিয়ে তীর্যক আলো ঘরে ঢুকছে। জানলার পাশেই কাঠের একটি গোল ডাইনিং টেবিল। খুবই সাধারণ ডিজাইন, কিন্তু অভিজাত। প্রফেসর কিয়োকো বাইরে থেকে নাস্তা নিয়ে এলেন। তিনি নিজে থেকেই ধরে নিয়েছেন আমি যেহেতু মুসলমান, ফলে পোর্গ বা শুকরের মাংশ গ্রহণ করি না। কিন্তু যে ব্রেডটি নিয়ে এলেন, তা কাটতে গিয়ে বেরিয়ে এলো ঠিক মাঝ বরাবর ...বিস্তারিত

২০০৫ সালের ১১ই জুন । টোকিও শহরের প্রথম দিনের সকাল। প্রফেসর কিয়োকোর সেতাগায়া কু-এর বাসায় দক্ষিণের জানালা দিয়ে তীর্যক আলো ঘরে ঢুকছে। জানলার পাশেই কাঠের একটি গোল ডাইনিং টেবিল। খুবই সাধারণ ডিজাইন, কিন্তু অভিজাত। প্রফেসর কিয়োকো বাইরে থেকে নাস্তা নিয়ে এলেন। তিনি নিজে থেকেই ধরে নিয়েছেন আমি যেহেতু মুসলমান, ফলে ...বিস্তারিত

২০০৫ সালের ১১ই জুন । টোকিও শহরের প্রথম দিনের সকাল। প্রফেসর কিয়োকোর সেতাগায়া কু-এর বাসায় দক্ষিণের জানালা দিয়ে তীর্যক আলো ...বিস্তারিত

জাপানের পথে পথে – (পর্ব-৩) কিয়োকোর সাকুরা হাউস

সাইম রানা | সোমবার, ২৬ এপ্রিল ২০২১ | পড়া হয়েছে 95 বার

সেতাগায়া কু-এর বাড়িটি কিয়োকোর নিজের। পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া দোতলা বাড়ির উপর তলায় থাকেন। একা। নীচতলায় তাঁর ছোট বোনের সংসার। প্রফেসরের কোনো পরিবার নেই। এ প্রসঙ্গে কখনো জানতেও চাইনি কারণ তাঁর বদান্যতার ভিতরে এক ধরনের আবরণশীলতা লক্ষ্য করেছি, আবার ভয়ও পেতাম। তিনি এই স্কলারশিপের পেছনে কী যে শ্রম দিয়েছেন তা বর্ণনা করা কঠিন, ফলে আমার নিকট শিক্ষা বিষয়ে এতটাই প্রত্যাশা করতেন যে তার জোগান দিতে দিতেই ত্রাহী ত্রাহী অবস্থা। ফলে স্বল্পসময়ের ...বিস্তারিত

সেতাগায়া কু-এর বাড়িটি কিয়োকোর নিজের। পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া দোতলা বাড়ির উপর তলায় থাকেন। একা। নীচতলায় তাঁর ছোট বোনের সংসার। প্রফেসরের কোনো পরিবার নেই। এ প্রসঙ্গে কখনো জানতেও চাইনি কারণ তাঁর বদান্যতার ভিতরে এক ধরনের আবরণশীলতা লক্ষ্য করেছি, আবার ভয়ও পেতাম। তিনি এই স্কলারশিপের পেছনে কী যে শ্রম দিয়েছেন তা বর্ণনা ...বিস্তারিত

সেতাগায়া কু-এর বাড়িটি কিয়োকোর নিজের। পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া দোতলা বাড়ির উপর তলায় থাকেন। একা। নীচতলায় তাঁর ছোট বোনের সংসার। প্রফেসরের ...বিস্তারিত

জাপানের পথে পথে – (পর্ব-২) নারিতা থেকে সেতাগায়া

সাইম রানা | বৃহস্পতিবার, ১৪ জানুয়ারি ২০২১ | পড়া হয়েছে 272 বার

অনেকক্ষণ ধরে আকাশে রঙের খেলা দেখছিলাম বিমানের জানলা দিয়ে। শেষরাতের নিকষ কালো আকাশের গহ্বর থেকে রক্তিম আভা ধীরে ধীরে বেরিয়ে এলো এবং পুরো আকাশকে লাল আলোয় ভরে তুললো। শুধু মেঘ আর মেঘ! হঠাৎ একটি মেঘের গভীর স্তর ভেঙে বিমান নীচে নেমে এলো, হায় একি! নীচে আরেক মেঘের ভূমি, যেন শুভ্র বিচান, তার উপর সারসের সাদা ডানার পালক ছড়িয়ে রয়েছে। নব্বুইএর দশকে একটি গান লিখেছিলাম, মেঘের বিছানায় প্রভাত ঘুমিয়ে থাকে হরিদ্রা কন্যার ...বিস্তারিত

অনেকক্ষণ ধরে আকাশে রঙের খেলা দেখছিলাম বিমানের জানলা দিয়ে। শেষরাতের নিকষ কালো আকাশের গহ্বর থেকে রক্তিম আভা ধীরে ধীরে বেরিয়ে এলো এবং পুরো আকাশকে লাল আলোয় ভরে তুললো। শুধু মেঘ আর মেঘ! হঠাৎ একটি মেঘের গভীর স্তর ভেঙে বিমান নীচে নেমে এলো, হায় একি! নীচে আরেক মেঘের ভূমি, যেন শুভ্র ...বিস্তারিত

অনেকক্ষণ ধরে আকাশে রঙের খেলা দেখছিলাম বিমানের জানলা দিয়ে। শেষরাতের নিকষ কালো আকাশের গহ্বর থেকে রক্তিম আভা ধীরে ধীরে বেরিয়ে ...বিস্তারিত

জাপানের পথে পথে (পর্ব-১)

সাইম রানা | সোমবার, ১১ জানুয়ারি ২০২১ | পড়া হয়েছে 257 বার

প্রায় পনের বছর পর লিখতে বসেছি জাপানের স্মৃতিকথা। সাড়ে নয় মাসের শিক্ষা-সময়ের অনেক কিছুই দেখছি ভুলে গেছি। অনেক শহর―অলিগলি, রাস্তা―প্রতিষ্ঠান কিংবা সান্নিধ্যে আসা বন্ধু-প্রিয়জনদের নামও মনে পড়ছে না। পরিকল্পিত ভাবে কোনো ডায়েরিও লেখা হয়ে ওঠেনি তখন। ভাষা শেখা অথবা সংগীত অনুশীলনের চাপে ভেসে গেছে সময়ের সিংহভাগ। তারপরও অনুভূতিময় অসাধারণ মনোরম দিনগুলো আমাকে টানে প্রতিক্ষণে। সেই অনুভূতির কথা লিখতে গিয়ে ছায়ার মতো ঘিরে থাকা স্মৃতির ডালপালাগুলো নতুন উপলব্ধি নিয়ে ভাবনাকে তাড়িত ...বিস্তারিত

প্রায় পনের বছর পর লিখতে বসেছি জাপানের স্মৃতিকথা। সাড়ে নয় মাসের শিক্ষা-সময়ের অনেক কিছুই দেখছি ভুলে গেছি। অনেক শহর―অলিগলি, রাস্তা―প্রতিষ্ঠান কিংবা সান্নিধ্যে আসা বন্ধু-প্রিয়জনদের নামও মনে পড়ছে না। পরিকল্পিত ভাবে কোনো ডায়েরিও লেখা হয়ে ওঠেনি তখন। ভাষা শেখা অথবা সংগীত অনুশীলনের চাপে ভেসে গেছে সময়ের সিংহভাগ। তারপরও অনুভূতিময় অসাধারণ মনোরম ...বিস্তারিত

প্রায় পনের বছর পর লিখতে বসেছি জাপানের স্মৃতিকথা। সাড়ে নয় মাসের শিক্ষা-সময়ের অনেক কিছুই দেখছি ভুলে গেছি। অনেক শহর―অলিগলি, রাস্তা―প্রতিষ্ঠান ...বিস্তারিত

সিলেটের জাফলং ভ্রমণ এবং রথ দেখা ও কলা বেচা

আসাদুজ্জামান জুয়েল | শুক্রবার, ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ | পড়া হয়েছে 713 বার

আমাদের গাড়ি চলতে চলতে গভীর রাতে গিয়ে পৌঁছায় সিলেট শহরের কাছাকাছি। রাত যেহেতু গভীর তাই শরীরও বেশ ক্লান্ত। একটু গা এলিয়ে না দিলে শরীর মন রিচার্জ হবে না। ভ্রমণে শরীর-মন সর্বদা সতেজ থাকা চাই। এত রাতে আর কোন দিকে মুভ না করে সিলেটেই বাকি রাতটুকু কাটিয়ে দেয়া উত্তম ভেবে ছুটছি শহরের দিকে। এর আগেও একবার সিলেট গিয়ে আমরা উঠেছিলাম হিল টাউন হোটেলে। নতুন হোটেল, তিন তারকা বিশিষ্ট বলছে ওরা। সেই ...বিস্তারিত

আমাদের গাড়ি চলতে চলতে গভীর রাতে গিয়ে পৌঁছায় সিলেট শহরের কাছাকাছি। রাত যেহেতু গভীর তাই শরীরও বেশ ক্লান্ত। একটু গা এলিয়ে না দিলে শরীর মন রিচার্জ হবে না। ভ্রমণে শরীর-মন সর্বদা সতেজ থাকা চাই। এত রাতে আর কোন দিকে মুভ না করে সিলেটেই বাকি রাতটুকু কাটিয়ে দেয়া উত্তম ভেবে ছুটছি ...বিস্তারিত

আমাদের গাড়ি চলতে চলতে গভীর রাতে গিয়ে পৌঁছায় সিলেট শহরের কাছাকাছি। রাত যেহেতু গভীর তাই শরীরও বেশ ক্লান্ত। একটু গা ...বিস্তারিত

জাফলং ভ্রমণ এবং রথ দেখা ও কলা বেচা

আসাদুজ্জামান জুয়েল | সোমবার, ৩১ আগস্ট ২০২০ | পড়া হয়েছে 1054 বার

করোনার করুনায় দীর্ঘদিন যাবৎ ঘরবন্দি মানুষ। শুধু আমিই নই। সারা বিশ্বের মানুষের একই দশা। কোথাও বের হওয়ার সকল দরজা বন্ধ। তাও পাকাপোক্ত ভাবে। মানে সরকারি নির্দেশনা মতে নানান বাধা বিপত্তির কারনে বাইরে যাওয়া নিষেধ। মানুষ হলো মুক্ত বিহঙ্গের মতো। এক জায়গায় বেশিক্ষণ বা বেশিদিন স্থির থাকতে পারে না। আমি নিজেও নিজেকে মানুষ দাবি করি। তাইতো আমিও বেশিদিন এক জায়গায় থাকতে পারি না। একটু হাওয়া বদল করার বদ অভ্যাস আছে! ঘরে ...বিস্তারিত

করোনার করুনায় দীর্ঘদিন যাবৎ ঘরবন্দি মানুষ। শুধু আমিই নই। সারা বিশ্বের মানুষের একই দশা। কোথাও বের হওয়ার সকল দরজা বন্ধ। তাও পাকাপোক্ত ভাবে। মানে সরকারি নির্দেশনা মতে নানান বাধা বিপত্তির কারনে বাইরে যাওয়া নিষেধ। মানুষ হলো মুক্ত বিহঙ্গের মতো। এক জায়গায় বেশিক্ষণ বা বেশিদিন স্থির থাকতে পারে না। আমি নিজেও ...বিস্তারিত

করোনার করুনায় দীর্ঘদিন যাবৎ ঘরবন্দি মানুষ। শুধু আমিই নই। সারা বিশ্বের মানুষের একই দশা। কোথাও বের হওয়ার সকল দরজা বন্ধ। ...বিস্তারিত

গোলাপী শহরের ‘জল মহল’

ওমর শাহ | বৃহস্পতিবার, ০৬ আগস্ট ২০২০ | পড়া হয়েছে 233 বার

গোলাপী রঙে মোড়া শহর রাজস্থানের রাজধানী জয়পুর। অফিসপাড়া, হাসপাতাল, স্কুলভবন সবকিছুর রঙই গোলাপী। যেদিকেই তাকাবেন, আদি নিদর্শন আর স্থাপত্যশিল্পে ভরপুর; পাহাড়ি এই জয়পুর। তাই পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ থেকে পর্যটকেরা ছুটে যান এই শহরে। জয়পুরে দেখার মতো আছে অনেক কিছুই। সব পর্যটকের পুরো জয়পুর দেখার সৌভাগ্য হয় না। আবার কিছু জায়গায় পা না রেখে কেউ গোলাপী শহর থেকে ফেরেন না। তেমন একটি জায়গা হলো জল মহল। এটি এমন একটি ঘর, যেটা পানির ...বিস্তারিত

গোলাপী রঙে মোড়া শহর রাজস্থানের রাজধানী জয়পুর। অফিসপাড়া, হাসপাতাল, স্কুলভবন সবকিছুর রঙই গোলাপী। যেদিকেই তাকাবেন, আদি নিদর্শন আর স্থাপত্যশিল্পে ভরপুর; পাহাড়ি এই জয়পুর। তাই পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ থেকে পর্যটকেরা ছুটে যান এই শহরে। জয়পুরে দেখার মতো আছে অনেক কিছুই। সব পর্যটকের পুরো জয়পুর দেখার সৌভাগ্য হয় না। আবার কিছু জায়গায় পা ...বিস্তারিত

গোলাপী রঙে মোড়া শহর রাজস্থানের রাজধানী জয়পুর। অফিসপাড়া, হাসপাতাল, স্কুলভবন সবকিছুর রঙই গোলাপী। যেদিকেই তাকাবেন, আদি নিদর্শন আর স্থাপত্যশিল্পে ভরপুর; ...বিস্তারিত