ঘোষণা

বিশ্ববিদ্যালয় জীবন স্বপ্ন না দুঃস্বপ্ন

সিফাত জেরিন ও সৈয়দ সাদ আন্দালিব | বুধবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২০ | পড়া হয়েছে 6 বার

জীবনের সেরা সময় বিশ্ববিদ্যালয় জীবন! শুনতে শুনতেই আমরা বেড়ে উঠি। তবে, বিশ্ববিদ্যালয়ে পৌঁছে বুঝতে পারি আমরা যা প্রত্যাশা করে বড় হয়েছি, বিষয়টি মোটেই তেমন নয়। আমরা আসলে যা প্রত্যাশা করি এবং তা পূরণ না হওয়ার কারণ কী? একটি ক্লাস প্রজেক্ট থেকে শুরু হওয়া অ্যাকাডেমিক এক্সপেরিয়েন্স প্রজেক্টে উঠে এসেছে যে, ক্যাম্পাসের জীবনযাত্রার মান এবং অ্যাকাডেমিক প্রোগ্রাম সম্মিলিতভাবে ভূমিকা রাখে শিক্ষার্থীরা তাদের বিশ্ববিদ্যালয় জীবন নিয়ে সন্তুষ্ট কি না সে বিষয়ে। শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন জায়গা ...বিস্তারিত

জীবনের সেরা সময় বিশ্ববিদ্যালয় জীবন! শুনতে শুনতেই আমরা বেড়ে উঠি। তবে, বিশ্ববিদ্যালয়ে পৌঁছে বুঝতে পারি আমরা যা প্রত্যাশা করে বড় হয়েছি, বিষয়টি মোটেই তেমন নয়। আমরা আসলে যা প্রত্যাশা করি এবং তা পূরণ না হওয়ার কারণ কী? একটি ক্লাস প্রজেক্ট থেকে শুরু হওয়া অ্যাকাডেমিক এক্সপেরিয়েন্স প্রজেক্টে উঠে এসেছে যে, ক্যাম্পাসের জীবনযাত্রার ...বিস্তারিত

জীবনের সেরা সময় বিশ্ববিদ্যালয় জীবন! শুনতে শুনতেই আমরা বেড়ে উঠি। তবে, বিশ্ববিদ্যালয়ে পৌঁছে বুঝতে পারি আমরা যা প্রত্যাশা করে বড় ...বিস্তারিত

মাধ্যমিকে আলাদা বিভাগ না থাকা, দুই শিক্ষাবিদের ভাবনা

সাদী মুহাম্মাদ আলোক | রবিবার, ২২ নভেম্বর ২০২০ | পড়া হয়েছে 48 বার

২০২২ সাল থেকে চালু হওয়া মাধ্যমিকের নতুন শিক্ষাক্রমে বিজ্ঞান, ব্যবসায় শিক্ষা ও মানবিকের মতো আলাদা বিভাগ থাকছে না। অর্থাৎ নবম-দশম শ্রেণিতেও শিক্ষার্থীরা একটি বিভাগের আওতায় পড়াশোনা করবে। সব শিক্ষার্থীই সব ধরনের শিক্ষা নিয়ে ১০ বছর পড়বে। গত ১৯ নভেম্বর সংসদের অধিবেশনে বিষয়টি জানান শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। সরকারের এই সিদ্ধান্ত শিক্ষার্থীদের জন্য যথার্থ কি না; নতুন শিক্ষাক্রম অনুযায়ী কেউ বিজ্ঞান পছন্দ না করলেও তাকে গণিত পড়তে হবে কিংবা কেউ বিজ্ঞান নিয়ে ...বিস্তারিত

২০২২ সাল থেকে চালু হওয়া মাধ্যমিকের নতুন শিক্ষাক্রমে বিজ্ঞান, ব্যবসায় শিক্ষা ও মানবিকের মতো আলাদা বিভাগ থাকছে না। অর্থাৎ নবম-দশম শ্রেণিতেও শিক্ষার্থীরা একটি বিভাগের আওতায় পড়াশোনা করবে। সব শিক্ষার্থীই সব ধরনের শিক্ষা নিয়ে ১০ বছর পড়বে। গত ১৯ নভেম্বর সংসদের অধিবেশনে বিষয়টি জানান শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। সরকারের এই সিদ্ধান্ত শিক্ষার্থীদের ...বিস্তারিত

২০২২ সাল থেকে চালু হওয়া মাধ্যমিকের নতুন শিক্ষাক্রমে বিজ্ঞান, ব্যবসায় শিক্ষা ও মানবিকের মতো আলাদা বিভাগ থাকছে না। অর্থাৎ নবম-দশম ...বিস্তারিত

ট্রাম্প কি আদৌ ক্ষমতা হস্তান্তর করবেন?

মরিয়ম জাহান | মঙ্গলবার, ১০ নভেম্বর ২০২০ | পড়া হয়েছে 41 বার

ট্রাম্পের ক্ষমতায় থাকার মতোই ক্ষমতা হস্তান্তর অস্থির হবে বলে মনে করছেন অনেকেই। কারো মনে প্রশ্ন, ট্রাম্প কি আদৌ ক্ষমতা হস্তান্তর করবেন? আর যদিও বা তিনি ক্ষমতা হস্তান্তর করেন তাহলে তা কতটা ধ্বংসাত্মক, প্রতিহিংসামূলক ও হট্টগোলের মধ্য দিয়ে হবে তা নিয়েও আশঙ্কা অনেকের। সংবাদমাধ্যম সিএনএন’র প্রতিবেদনে এসব বলা হয়। প্রতিবেদন মতে, নির্বাচন মেনে নিতে ট্রাম্পের আপত্তি, বিভ্রান্তিকর টুইট, বেসরকারিভাবে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত জো বাইডেনকে মেনে না নেওয়া ইত্যাদি ঘটনায় এমন প্রশ্ন জেগেছে। এখন হয়তো ট্রাম্পকে ...বিস্তারিত

ট্রাম্পের ক্ষমতায় থাকার মতোই ক্ষমতা হস্তান্তর অস্থির হবে বলে মনে করছেন অনেকেই। কারো মনে প্রশ্ন, ট্রাম্প কি আদৌ ক্ষমতা হস্তান্তর করবেন? আর যদিও বা তিনি ক্ষমতা হস্তান্তর করেন তাহলে তা কতটা ধ্বংসাত্মক, প্রতিহিংসামূলক ও হট্টগোলের মধ্য দিয়ে হবে তা নিয়েও আশঙ্কা অনেকের। সংবাদমাধ্যম সিএনএন’র প্রতিবেদনে এসব বলা হয়। প্রতিবেদন মতে, নির্বাচন মেনে ...বিস্তারিত

ট্রাম্পের ক্ষমতায় থাকার মতোই ক্ষমতা হস্তান্তর অস্থির হবে বলে মনে করছেন অনেকেই। কারো মনে প্রশ্ন, ট্রাম্প কি আদৌ ক্ষমতা হস্তান্তর ...বিস্তারিত

আমরা জাপানিরা কেন এত কাজ করি?

মানাহো ইগুরা, জাপান থেকে | বৃহস্পতিবার, ০৫ নভেম্বর ২০২০ | পড়া হয়েছে 66 বার

বলা হয় যে জাপানের মানুষ অন্য প্রায় সব দেশের মানুষের চেয়ে অনেক বেশি পরিশ্রমী। কোনোরকম অভিযোগ না করে সাগ্রহে কাজ করার মানুষ হিসেবে নিজেদের নিয়ে আমরা গর্বিত। কিন্তু কোনোরকম অভিযোগ ছাড়া মনোযোগ দিয়ে কাজ করে যাওয়া সব সময় ভালো নয়। মাত্রাতিরিক্ত কাজ করার কারণে প্রতি বছর প্রায় দশ লাখ মানুষ জাপানে মারা যাচ্ছেন। অন্যান্য উন্নত দেশে, যেমন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বা ব্রিটেনে এত বড় সংখ্যা দেখা যায় না। মূলত উন্নত দেশে শরীর ...বিস্তারিত

বলা হয় যে জাপানের মানুষ অন্য প্রায় সব দেশের মানুষের চেয়ে অনেক বেশি পরিশ্রমী। কোনোরকম অভিযোগ না করে সাগ্রহে কাজ করার মানুষ হিসেবে নিজেদের নিয়ে আমরা গর্বিত। কিন্তু কোনোরকম অভিযোগ ছাড়া মনোযোগ দিয়ে কাজ করে যাওয়া সব সময় ভালো নয়। মাত্রাতিরিক্ত কাজ করার কারণে প্রতি বছর প্রায় দশ লাখ মানুষ জাপানে ...বিস্তারিত

বলা হয় যে জাপানের মানুষ অন্য প্রায় সব দেশের মানুষের চেয়ে অনেক বেশি পরিশ্রমী। কোনোরকম অভিযোগ না করে সাগ্রহে কাজ ...বিস্তারিত

ভাসানচরে না গেলে রোহিঙ্গাদের ৪ ক্ষতি

হিমালয় আহমেদ | শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০ | পড়া হয়েছে 43 বার

মিয়ানমার সেনা বাহিনীর নির্যাতনে বাংলাদেশের কক্সবাজারে আশ্রয় নিয়েছে প্রায় ১০ লাখ রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী। উখিয়া ও টেকনাফের ঘিঞ্জি শরণার্থী শিবিরে চাপ কমাতে বাংলাদেশ সরকার এক লাখ রোহিঙ্গার নোয়াখালীর ভাসানচরে নতুন একটি আধুনিক নগরী তৈরি করেছে৷ ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের নেয়ার জন্য বাংলাদেশ সরকার নানাভাবে চেষ্টা করছে। তাদের ভাসানচরে নিতে কোন ধরণের জোর-জবরদস্তি করছে না সরকার। তবে জীবন বদলাতে ও উন্নত জীবনের আশায় কক্সবাজার থেকে ভাসানচরে স্বেচ্ছায় যেতে রাজি হয়েছেন কিছু রোহিঙ্গা৷ এর মাঝেই ভাসানচরে যাওয়া না যাওয়ার ...বিস্তারিত

মিয়ানমার সেনা বাহিনীর নির্যাতনে বাংলাদেশের কক্সবাজারে আশ্রয় নিয়েছে প্রায় ১০ লাখ রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী। উখিয়া ও টেকনাফের ঘিঞ্জি শরণার্থী শিবিরে চাপ কমাতে বাংলাদেশ সরকার এক লাখ রোহিঙ্গার নোয়াখালীর ভাসানচরে নতুন একটি আধুনিক নগরী তৈরি করেছে৷ ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের নেয়ার জন্য বাংলাদেশ সরকার নানাভাবে চেষ্টা করছে। তাদের ভাসানচরে নিতে কোন ধরণের জোর-জবরদস্তি করছে না সরকার। তবে ...বিস্তারিত

মিয়ানমার সেনা বাহিনীর নির্যাতনে বাংলাদেশের কক্সবাজারে আশ্রয় নিয়েছে প্রায় ১০ লাখ রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী। উখিয়া ও টেকনাফের ঘিঞ্জি শরণার্থী শিবিরে চাপ কমাতে ...বিস্তারিত

বাংলাদেশে ইয়াবার বিস্তারে দায়ী মিয়ানমার!

অংকন জুলিয়া | মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০ | পড়া হয়েছে 35 বার

মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর নির্যাতনে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের প্রতিনিয়ত সংবাদের শিরোনাম হতে দেখা যাচ্ছে কক্সবাজারের রোহিঙ্গা শিবিরগুলোতে। মাদক ব্যবসা ও অপরাধজগতে প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে প্রতিনিয়তই খুনোখুনি হচ্ছে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে। ২০১৮ থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত নিহত হয়েছে কমপক্ষে ১০০ জন রোহিঙ্গা। তার মধ্যে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হওয়ার সংখ্যা প্রায় ৬৮ জন। সীমান্ত অঞ্চলে মিয়ানমারের ভিতরে ইয়াবার কারখানা আছে ৪০টি। এছাড়া ‘ইউনাইটেড ওয়া স্টেইট আর্মি’ নামে আন্তর্জাতিক মাদক পাচারকারী সংগঠনেরও চারটি কারখানা রয়েছে। কারখানাগুলোতে তৈরি ইয়াবা মিয়ানমারভিত্তিক ১০ ...বিস্তারিত

মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর নির্যাতনে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের প্রতিনিয়ত সংবাদের শিরোনাম হতে দেখা যাচ্ছে কক্সবাজারের রোহিঙ্গা শিবিরগুলোতে। মাদক ব্যবসা ও অপরাধজগতে প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে প্রতিনিয়তই খুনোখুনি হচ্ছে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে। ২০১৮ থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত নিহত হয়েছে কমপক্ষে ১০০ জন রোহিঙ্গা। তার মধ্যে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হওয়ার সংখ্যা প্রায় ৬৮ জন। সীমান্ত অঞ্চলে মিয়ানমারের ভিতরে ইয়াবার ...বিস্তারিত

মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর নির্যাতনে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের প্রতিনিয়ত সংবাদের শিরোনাম হতে দেখা যাচ্ছে কক্সবাজারের রোহিঙ্গা শিবিরগুলোতে। মাদক ব্যবসা ও অপরাধজগতে প্রভাব বিস্তারকে ...বিস্তারিত

ব্যাপক কর্মসংস্থানের হাতছানি ভাসানচরে

এম আর শাফিন | রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০ | পড়া হয়েছে 44 বার

ভাসানচরে এক লাখ মানুষের জন্য আশ্রয়কেন্দ্র তৈরি করেছে বাংলাদেশ। অবশ্য অনেকেরই শংঙ্কা ছিলো, ভাসানচর মানুষের বসবাসের জন্য উপযোগী কি না? স্থানীয়দের কাছে ঠেঙ্গার চর নামে পরিচিত মেঘনার মোহনায় জেগে ওঠা এই দ্বীপে আগে থেকেই বসবাস ছিল রাখাল ও জেলেদের। কোন সুযোগ-সুবিধা ছাড়াই বহু বছর ধরে হাজার হাজর গরু-মহিষ নিয়ে এখানে বসবাস করছেন একদল রাখাল। ভাসান চরে বসবসাকারী রাখালরা জানান, আমরা যখন আসি এখানে তেমন কোন সুযোগ সুবিধা ছিলো না। এখন ...বিস্তারিত

ভাসানচরে এক লাখ মানুষের জন্য আশ্রয়কেন্দ্র তৈরি করেছে বাংলাদেশ। অবশ্য অনেকেরই শংঙ্কা ছিলো, ভাসানচর মানুষের বসবাসের জন্য উপযোগী কি না? স্থানীয়দের কাছে ঠেঙ্গার চর নামে পরিচিত মেঘনার মোহনায় জেগে ওঠা এই দ্বীপে আগে থেকেই বসবাস ছিল রাখাল ও জেলেদের। কোন সুযোগ-সুবিধা ছাড়াই বহু বছর ধরে হাজার হাজর গরু-মহিষ নিয়ে এখানে ...বিস্তারিত

ভাসানচরে এক লাখ মানুষের জন্য আশ্রয়কেন্দ্র তৈরি করেছে বাংলাদেশ। অবশ্য অনেকেরই শংঙ্কা ছিলো, ভাসানচর মানুষের বসবাসের জন্য উপযোগী কি না? ...বিস্তারিত

একদা শান্তির জনপদ বেগমগঞ্জ এখন ৫০ বাহিনীর কাছে জিম্মি

আনোয়ারুল হায়দার | মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০ | পড়া হয়েছে 46 বার

সংঘবদ্ধ ধর্ষণ আর নারী নির্যাতনের ঘটনায় নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উঠে এসেছে সংবাদ শিরোনামে। নারী নির্যাতনে অভিযুক্ত দেলোয়ার বাহিনীর প্রধানসহ অন্য সদস্যদের গ্রেপ্তারের পর বেগমগঞ্জ উপজেলার ১৬টি ইউনিয়ন আর একটি পৌরসভার প্রায় ৫০টি সন্ত্রাসী বাহিনীর তথ্যও উঠে আসছে। তবে নোয়াখালী পুলিশ ও সিভিল প্রশাসনসহ অন্যান্য গোয়েন্দা সংস্থার কাছে বেগমগঞ্জের সন্ত্রাসী বাহিনীর সঠিক কোনো পরিসংখ্যান নেই। স্থানীয় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর দাবি বেগমগঞ্জে দুটি সন্ত্রাসী বাহিনী- সম্রাট ও সুমন বা খালাসি সুমন বাহিনী ছাড়া আর ...বিস্তারিত

সংঘবদ্ধ ধর্ষণ আর নারী নির্যাতনের ঘটনায় নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উঠে এসেছে সংবাদ শিরোনামে। নারী নির্যাতনে অভিযুক্ত দেলোয়ার বাহিনীর প্রধানসহ অন্য সদস্যদের গ্রেপ্তারের পর বেগমগঞ্জ উপজেলার ১৬টি ইউনিয়ন আর একটি পৌরসভার প্রায় ৫০টি সন্ত্রাসী বাহিনীর তথ্যও উঠে আসছে। তবে নোয়াখালী পুলিশ ও সিভিল প্রশাসনসহ অন্যান্য গোয়েন্দা সংস্থার কাছে বেগমগঞ্জের সন্ত্রাসী বাহিনীর সঠিক কোনো ...বিস্তারিত

সংঘবদ্ধ ধর্ষণ আর নারী নির্যাতনের ঘটনায় নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উঠে এসেছে সংবাদ শিরোনামে। নারী নির্যাতনে অভিযুক্ত দেলোয়ার বাহিনীর প্রধানসহ অন্য সদস্যদের ...বিস্তারিত

লালন আছেন সব মানুষের ভালোবাসায়

শাহ আলম সাজু | শনিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২০ | পড়া হয়েছে 60 বার

লালন সাঁইজি নেই আজ ১৩০ বছর। কিন্তু আসলেই কি তিনি নেই? লোকে বলে- লালন আছেন সবখানে। গানে-কবিতায়-আড্ডায়-সিনেমায়-গল্পে-মানুষের ভালোবাসায়- সবখানে লালনের বিচরণ। প্রবল সংকটেও লালনের গান মুখে তুলে নেয় মানুষ। প্রবল ভালোবাসায়ও তার গান কণ্ঠে তুলে নেয়। লালন এমনই এক বিস্ময় জাগানিয়া নাম। বিবিসির জরিপে বিশ জন সেরা বাঙালির তালিকায়ও আছেন লালন সাঁই। এ দেশের গ্রাম-শহর-নদী-পাহাড় সবখানের সব বয়সী মানুষের মুখে লালনের গান স্থান করে নিয়েছে। লালনের তিরোধানের এতো বছর পরও তার গানের ...বিস্তারিত

লালন সাঁইজি নেই আজ ১৩০ বছর। কিন্তু আসলেই কি তিনি নেই? লোকে বলে- লালন আছেন সবখানে। গানে-কবিতায়-আড্ডায়-সিনেমায়-গল্পে-মানুষের ভালোবাসায়- সবখানে লালনের বিচরণ। প্রবল সংকটেও লালনের গান মুখে তুলে নেয় মানুষ। প্রবল ভালোবাসায়ও তার গান কণ্ঠে তুলে নেয়। লালন এমনই এক বিস্ময় জাগানিয়া নাম। বিবিসির জরিপে বিশ জন সেরা বাঙালির তালিকায়ও আছেন লালন ...বিস্তারিত

লালন সাঁইজি নেই আজ ১৩০ বছর। কিন্তু আসলেই কি তিনি নেই? লোকে বলে- লালন আছেন সবখানে। গানে-কবিতায়-আড্ডায়-সিনেমায়-গল্পে-মানুষের ভালোবাসায়- সবখানে লালনের ...বিস্তারিত

বানের জলের মতো আসছে রেমিট্যান্স

তৌহিদ হাসান প্রমাণ | শুক্রবার, ০৯ অক্টোবর ২০২০ | পড়া হয়েছে 55 বার

বিভিন্ন দেশে থাকা প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্স আসছে বানের জলের মতো। দেশে প্রথমবারের মতো বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ৪০ বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়েছে। ৮ অক্টোবর দিন শেষে এ তথ্য জানিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র সিরাজুল ইসলাম বলেন, দেশে বৈদেশিক মুদ্রার যে রির্জাভ রয়েছে, তা দিয়ে আগামী দশ মাসের আমদানি ব্যয় মেটানো যাবে। এর আগে গত ১ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ প্রথমবারের মতো ৩৯ দশমিক ৪০ বিলিয়ন ডলার অতিক্রম করে। বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য বলছে, গত ...বিস্তারিত

বিভিন্ন দেশে থাকা প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্স আসছে বানের জলের মতো। দেশে প্রথমবারের মতো বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ৪০ বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়েছে। ৮ অক্টোবর দিন শেষে এ তথ্য জানিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র সিরাজুল ইসলাম বলেন, দেশে বৈদেশিক মুদ্রার যে রির্জাভ রয়েছে, তা দিয়ে আগামী দশ মাসের আমদানি ব্যয় মেটানো যাবে। এর আগে গত ১ ...বিস্তারিত

বিভিন্ন দেশে থাকা প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্স আসছে বানের জলের মতো। দেশে প্রথমবারের মতো বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ৪০ বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়েছে। ৮ অক্টোবর ...বিস্তারিত