ঘোষণা

টোকিওতে ইসরাইল দূতাবাসের সামনে মুসলমানদের মানব বন্ধন ও বিক্ষোভ

রাহমান মনি | শনিবার, ২২ মে ২০২১ | পড়া হয়েছে 93 বার

টোকিওতে ইসরাইল দূতাবাসের সামনে মুসলমানদের মানব বন্ধন ও বিক্ষোভ

ফিলিস্তিনের নিরীহ জনগোষ্ঠির উপর ইসরাইলি সৈন্যদের আগ্রাসন এবং যুদ্ধবিধি না মেনে নির্বিচারে নারী ও শিশু হত্যার প্রতিবাদে জাপানের রাজধানী টোকিওতে ইসরাইলি দূতাবাসের সামনে জাপানে বসবাসরত বিভিন্ন দেশের মুসলমান নাগরিকরা মানব বন্ধন এবং বিক্ষোভ প্রদর্শন করে।
জাপানের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমোদন নিয়ে ২১ মে ২০২১, শুক্রবার বিকেল তিনটার সময় টোকিওর চিওদা ওয়ার্ডে অবস্থিত উক্ত দূতাবাসের সামনে বিক্ষোভকারীদের আগমন ঘটতে থাকলে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন তা নিয়ন্ত্রণ করতে থাকে। এসময় মানব বন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশে যোগদানকারী বাংলাদেশ সহ বিভিন্ন দেশের প্রবাসীরা ফিলিস্তিনি সহ অন্যান্য দেশের নাগরিকরা তাদের নিজ নিজ দেশের পতাকা নিয়ে সংহতি জানাতে দেখা যায়। বিক্ষোভকারীরা স্লোগানে স্লোগানে ইসরাইলি বাহিনীর অবৈধ ও অমানবিক আচরণ এবং হামলার নিন্দা জানিয়ে ফিলিস্তিনের জনগণের প্রতি ভালোবাসা ও পূর্ণ সমর্থন জানায়।
যদিও উভয় পক্ষের সম্মতিতে বৃহস্পতিবার রাতে যুদ্ধ বিরতি ঘোষণা কার্যকর করা হয় তারপরেও বিক্ষোভে অংশ গ্রহণকারীদের মধ্যে সামান্যতম ভাটা পড়েনি। এসময় আবহাওয়া কিছুটা প্রতিকূল থাকা সত্বেও বৈরী আবহাওয়া উপেক্ষা করে প্রায় সহস্রাধিক প্রবাসী মুসলিম উক্ত মানব বন্ধন ও বিক্ষোভে অংশ নেয়।
বিক্ষোভকারীদের সকলেই সমস্বরে আল-আকসা মসজিদের জন্য জীবন উৎসর্গ করতে প্রস্তুত আছেন বলে ঘোষণাও দেন। তারা গাজায় ইসরাইলি হামলাকে ‘গণহত্যা’ হিসাবে আখ্যা দেন। বিক্ষোভকারীরা বিভিন্ন ভাষায় ‘ফিলিস্তিনকে মুক্ত করো’ নামাঙ্কিত পতাকা নিয়ে ‘ইন্তিফাদা বা গণজাগরণ দীর্ঘজীবী হোক’ বলে এ সময় স্লোগান দেয় তারা। বেশিরভাগ মানুষকে এ সময় ‘ফিলিস্তিনের সঙ্গে সংহতি’ ছাড়াও নানা প্ল্যাকার্ড বহন করতে দেখা যায়।
সমাবেশে বিক্ষোভ প্রদর্শন শেষে এক সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে প্রবাসী নেতৃবৃন্দ বলেন, ইফতার ও নামাজ পড়া অবস্থায় আল-আকসা মসজিদ চত্বরে ঢুকে ইসরাইলি পুলিশের বেধড়ক লাঠিপেটা, কাঁদানে গ্যাস এবং নির্বিচারে রাবার বুলেট ছুড়ে হাজার হাজার নিরীহ ফিলিস্তিনিকে হতাহত করে।
তারা আরো বলেন, এ হামলা মানবতার বিরুদ্ধে। গোটা বিশ্ব যখন করোনা মহামারিতে ক্লান্ত তখন অবৈধ দখলদার ইসরাইল পবিত্র রমজান মাসে দানবীয় রূপে আবির্ভূত হয়। পবিত্র রমজান মাসে মুসলমানরা যখন ইবাদাত-বন্দেগিতে মশগুল তখনই অশুভ ইহুদিবাদী শক্তি জঘণ্য নারকীয় হামলা চালায় এবং শত শত নিরীহ জনগণকে হত্যা করে। যার অধিকাংশই নারী ও শিশু। আর এই হত্যাযজ্ঞে সমর্থন করে অ্যামেরিকা সহ পশ্চিমা কিছু দেশ।
বিক্ষোভ সমাবেশে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য এবং স্থানীয় জাপানী, প্রবাসী মিডিয়া সহ বিশ্ব মিডিয়া কর্মীদের উপস্থিতি ছিল লক্ষ্যনীয়। উল্লেখ্য গত ১৪মে বিক্ষোভ মিছিলের আয়োজন করা হয়েছিল জাপানের রাজধানী টোকিওতে। পবিত্র ঈদুল ফিতরের দিন টোকিওর শিবুইয়া এলাকায় ফিলিস্তিনের ওপর বর্বর হামলার প্রতিবাদে ওই বিক্ষোভ মিছিল হয়।
জুমার নামাজ শেষে শিবুইয়া এলাকার একটি মসজিদ থেকে নির্যাতিত ফিলিস্তিনিদের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করে এবং ইসরাইলের মানবতা বিরোধী কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদে বিক্ষুব্ধ জাপানিরাও ওই মিছিলে অংশ করে প্রতিবাদ জানায়। এসময়ও বিক্ষোভকারীরা ‘ফ্রিডম ফর গাজা’ এবং ‘প্রোটেক্ট প্যালেস্টাইন’ লেখা প্ল্যাকার্ড নিয়ে শিব্যুইয়ার বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

Facebook Comments

বাংলাদেশ সময়: ১২:১৯ অপরাহ্ণ | শনিবার, ২২ মে ২০২১

জাপানের প্রথম অনলাইন বাংলা পত্রিকা |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

ad