ঘোষণা

মে দিবস ও করোনা পরিস্থিতি

রীতা আক্তার | শনিবার, ০১ মে ২০২১ | পড়া হয়েছে 64 বার

মে দিবস ও করোনা পরিস্থিতি

আজ মহান মে দিবস।
খেটে খওয়া শ্রমজীবী মানুষের অধিকার আদায়ে রক্তঝরা সংগ্রামের এক গৌবরময় ইতিহাস সৃষ্টির দিন। সারা বিশ্বের পাশাপাশি দ্বিতীয়বারের মতো করোনা মহামারীকে সঙ্গে নিয়ে দিনটি পালন করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। দিনটি শ্রমিক শ্রেণীর আন্তর্জাতিক সংহতির দিন। আট ঘন্টা শ্রম অধিকার অদায়ের লক্ষে ১৮৮৬ সালের ১ মে আন্দোলন চলাকালে যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগো শহরের হে মার্কেটে পুলিশের গুলিতে নিহত হন তরতাজা ১১ শ্রমিক। ১৮৮৯ সালের ১৪ জুলাই প্যারিসে অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক শ্রমিক সম্মেলনে শিকাগো ট্র্যাজেডিকে “আন্তর্জাতিক শ্রমিক সংহতি দিবস” হিসেবে পালনের ঘোষণা দেয়া হয়। এবার দিবসটির প্রতিপাদ্য- ‘ মালিক – শ্রমিক নির্বিশেষে, মুজিবরর্ষে গড়বো দেশ’।
করোনা পরিস্হিতিতে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত নারী শ্রমিকেরা। অনেকে কাজ হারিয়েছেন। অনেকের মুজুরি ও কাজ দুটোই কমে গেছে। ফলে অনাহারে অর্ধাহারে অনিরাপত্তায় কাটছে তাদের জীবন। পুরুষ শ্রমিকদের কাজে রাখলেও নারীদের বাদ দিচ্ছেন। মুজুরির ক্ষেত্রেও পুরুষ শ্রমিককে ৪০০ টাকা দিলেও নারী শ্রমিককে দেন ৩০০ টাকা বা তার চেয়ে কম।
বিশেষজ্ঞরা বলছেন, দেশের অর্থনীতির প্রধান চালিকা শক্তি তৈরী পোশাক শিল্প। দেশের রপ্তানি আয়ের ৮৪ ভাগ আসে পোশাক খাত থেকে। কিন্তু করোনা কালীন সময়ে মুখ থুবড়ে পড়েছে অর্থনীতির চাকা।
করোনাকালীন সময়ে কাজ খুইয়েছেন কোটি শ্রমিক। ঘরবন্দি জীবনে তাদের আয়ও প্রায় শূন্যের কোঠায়। আশঙ্কা হলো এই মানুষগুলো শেষ পর্যন্ত কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে। সোয়া ৫ কোটি শ্রমজীবীর জীবন- জীবিকা আজ হুমকির মুখে।
আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্হা আইএলওর প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, করোনার দ্বিতীয় ধাক্কায় বৈশ্বিকভাবে অপ্রাতিষ্ঠানিক খাতের মধ্যে নির্মান খাত,পর্যটন, অতিক্ষুদ্র ব্যবসা উদ্যোগে নিয়োজিত শ্রমিকরা সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত।
শ্রমিকদের বাঁচিয়ে রাখতে দু’টি পথ খোলা আছে সরকারের সামনে। এক, উদ্যোক্তারা যাতে নির্বিঘ্নে ব্যবসা চালিয়ে নিতে পারেন সে ব্যবস্হা করা। দুই সারাসরি শ্রমিকদের হাতে সহায়তা পৌঁছানো। ৯০ লাখ উদ্যোক্তার মধ্যে হয়তো এক লাখ উদ্যোক্তা সরকারের প্রণোদনা থেকে সুবিধা পেয়েছেন।
লকডাউনের কারণে গত বছরের মতো এবারও মে দিবসের সব ধরনের সরকারি কর্মসূচী বাতিল করা হয়েছে।
বিশ্বের এই মহামারীতে কৃষক, শ্রমিক, মজুর, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী আজ অনেকেই হুমকির মুখে। করোনা পরিস্হিতি স্বাভাবিক না হওয়া অবধি শ্রমজীবি মানুষের দিন ফিরবে না।

————
ছবি ইন্টারনেট থেকে নেয়া।

Facebook Comments

বাংলাদেশ সময়: ১২:১১ অপরাহ্ণ | শনিবার, ০১ মে ২০২১

জাপানের প্রথম অনলাইন বাংলা পত্রিকা |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত